July 17, 2024 2:01 pm

সুপার এইটে উঠেও যে দুশ্চিন্তায় ভাসছে বাংলাদেশ

সুপার এইটে উঠেও যে দুশ্চিন্তায় ভাসছে বাংলাদেশ।
চলমান টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বে চার ম্যাচের মধ্যে তিনটি জিতে সুপার এইটে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছে বাংলাদেশ। সুপার এইটে সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়ন শ্রীলঙ্কা, নেদারল্যান্ডস ও নেপালকে হারিয়েও দুশ্চিন্তায় টাইগাররা।

সোমবার নেপালের মতো অপেক্ষাকৃত দুর্বল দলের বিপক্ষে অত্যন্ত বাজে পারফরম্যান্সের কারণে 19.3 ওভারে মাত্র 106 রানে গুটিয়ে যায় বাংলাদেশ। কিছু দুর্দান্ত বোলিংয়ের সুবাদে বাংলাদেশ পরে 21 রানের রোমাঞ্চকর জয়ের সাথে সুপার এইটে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে।

গ্রুপ পর্বের বাধা কাটিয়ে দ্বিতীয় রাউন্ডে উঠলেও দলের পারফরম্যান্স নিয়ে চিন্তিত বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। নেপালের বিপক্ষে খেলার পর অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত বলেছেন: “আমরা সুপার এইটে থাকতে পেরে খুব খুশি, কিন্তু আমাদের ব্যাটিং খুব একটা ভালো ছিল না।” গত তিন-চার ম্যাচে বোলাররা আমাদের জয় এনে দিয়েছে। চপ বিভাগকে অবশ্যই পরিকল্পনা করতে হবে। ভাবুন কি সমস্যা। পরের ম্যাচে আমাদের ভালো করতে হবে।

চলমান টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে মাত্র এক ম্যাচে বাংলাদেশ ১৫০ রান করতে পেরেছে। ব্যাটসম্যানরা বারবার একই ভুল করছেন বলে মনে করেন অধিনায়ক। তিনি বলেছেন: “আমি আশা করি বোলাররা আমাদের পরবর্তী কয়েকটি ম্যাচ জিততে সাহায্য করবে।”

তবে ব্যাটসম্যানদের আরও দায়িত্ব নিতে হবে। একই ভুলের পুনরাবৃত্তি করুন। বিশ্বকাপের মতো গুরুত্বপূর্ণ টুর্নামেন্টে এটা হতে দেওয়া যায় না। কেন এমন হয় তা আমাদের খুঁজে বের করতে হবে।

অধিনায়ক আরও বলেন, বিশ্বকাপে উইকেট আমাদের জন্য খুব একটা সমস্যা নয়। এই উইকেটে 140-150 রান করতে হবে। কিন্তু আমরা এটা করতে পারি না। অতএব, এই ধারণা আরও বেশি সাধারণ হয়ে উঠছে। ভাল ফলাফল অর্জন করতে, আপনাকে ভাল শুরু করতে হবে। কিন্তু আমরা খুব একটা ভালো শুরু করিনি।

এমনকি লোয়ার অর্ডার ব্যাটসম্যানরাও ভালো করছে না। তাই আমাদের পরিকল্পনা করতে হবে কিভাবে আমরা বড় রান করতে পারি। সুপার এইটে ভালো করতে হবে ২১ জুন অস্ট্রেলিয়া, ২২ জুন ভারতের এবং ২৫ জুন আফগানিস্তানের মুখোমুখি হয়ে।