July 17, 2024 2:01 pm

বিশ্বরেকর্ডের ম্যাচে আরো যতগুলো রেকর্ড হয়েছে

বিশ্বরেকর্ডের ম্যাচে আরো যতগুলো রেকর্ড হয়েছে।
প্রথম ইনিংসে একটি দল প্রথমে ব্যাট করে 261 রান করে। অন্য দল এই ধারা অনুসরণ করে এবং 8 বল বাকি রেখে জিতে নেয়। শুক্রবার ইডেন গার্ডেনে গড়েছে দুটি বিশ্ব রেকর্ড। এই ম্যাচেও গড়েছে বেশ কিছু রেকর্ড। সব মিলিয়ে ইতিহাস তৈরি হয়েছে এই খেলায়।

অতীতে এত রান তাড়া করে কোনো দলই জিততে পারেনি। আগের রেকর্ডটি ছিল দক্ষিণ আফ্রিকার। 2023 সেঞ্চুরিয়ানে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে 259 রান করে তারা জিতেছিল। তৃতীয় স্থান – মিডলসেক্স। 2023 সালে, দল সারেকে 253 রানে হারিয়েছিল।

সাক্ষাৎকারে ধোনি-ব্রাভোদের সঙ্গে যে কথা হয় তা জানান মুস্তাফিজ

এই তালিকায় শুধু আইপিএলই প্রাধান্য পেয়েছে। শীর্ষ তিনে রয়েছে তিনটি আইপিএল খেলা। এই বছর সবকিছু ঘটেছে। কলকাতা-পাঞ্জাব ম্যাচে মোট 42টি ছক্কা রয়েছে। দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে রয়েছে হায়দ্রাবাদ-মুম্বাই এবং হায়দ্রাবাদ-বেঙ্গালুরু গেমস। উভয় ক্ষেত্রেই ছয়টির মধ্যে 38টি। বালখ লিজেন্ডস বনাম কাবুল সোয়ানন আফগান প্রিমিয়ার লিগে 37 ছক্কায় চতুর্থ স্থানে খেলছে।

এই জয়টি আইপিএলের ইতিহাসে প্রথম স্থানে রয়েছে এবং এটি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সর্বোচ্চ স্কোরিং জয়। এর আগে 2020 সালে, রাজস্থান 224 রান তাড়া করে শারজাহতে পাঞ্জাবকে পরাজিত করেছিল। কয়েকদিন আগে এই বছর ইডেনে, রাজস্থানই কলকাতার বিরুদ্ধে জয়ের জন্য 224 রান পার করেছিল। 2021 সালে মুম্বাই চেন্নাইকে 219 রানে হারিয়েছিল।

কলকাতার বিরুদ্ধে পাঞ্জাবের ব্যাটসম্যানরা মারেন মোট ২৪টি ছক্কা। এটি সর্বোচ্চ স্তর। এর আগে এই আইপিএলে বেঙ্গালুরুর বিপক্ষে হায়দরাবাদের ব্যাটসম্যানরা 22টি ছক্কা মেরেছিলেন। এবার দিল্লির বিরুদ্ধে 22টি ছক্কা হাঁকালেন হায়দরাবাদের ব্যাটসম্যানরা। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এটি নেপালের রেকর্ড। গত বছরের এশিয়ান গেমসে নেপাল মঙ্গোলিয়ার বিপক্ষে ২৬টি ছক্কা মেরেছিল।

এ বছর হায়দরাবাদ বেঙ্গালুরুর বিপক্ষে দুই ইনিংসে ৫৪৯ রান করেছে। এর আগে হায়দরাবাদ-মুম্বাই ম্যাচে ৫২৩ রান করেছিল। শুক্রবার ইডেনে একই ধরনের ঘটনা ঘটেছে। কলকাতা ও পাঞ্জাবের ইনিংসে মোট ৫২৩ রান। এর আগে, 2010 সালে রাজস্থানের বিরুদ্ধে চেন্নাইয়ের 469 রান ছিল 13 বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ।