July 17, 2024 2:16 pm

এবার স্পেনের চাপে আ’ত্মঘাতী গোলে দিশেহারায় পরাজিত ইতালি

এবার স্পেনের চাপে আ’ত্মঘাতী গোলে দিশেহারায় পরাজিত ইতালি।চোটের মৌসুম শেষ। রাজত্বকারী ইতালীয় চ্যাম্পিয়নরা তখন প্রত্যাবর্তনের প্রত্যাশা দেখিয়েছিল। স্প্যানিশ ডিফেন্স বল আটকায় এবং কর্নার দেয়। কিন্তু কাজ হয়নি। নিজেদের কাছে এক গোলে হেরে যায় ইতালি।

বৃহস্পতিবার 13:00 স্পেন-ইতালিতে গ্রুপ বি-এর দুই হেভিওয়েট মুখোমুখি হবে। ভেল্টিনস অ্যারেনায় বারবার ব্যর্থ আক্রমণ সত্ত্বেও, স্পেন ইতালির এক আত্মঘাতী গোলের সুবাদে ১-০ স্কোর নিয়ে মাঠ ছাড়ে।

খেলার শুরু থেকেই বাজে ফুটবল খেলতে থাকে স্পেন। আক্রমণের পর আক্রমণে ইতালীয় রক্ষণভাগ ধ্বংস হয়ে যায়। লক্ষ্য সময়ের ব্যাপার। সেটা হয়নি। শেষ পর্যন্ত বিরতির পর উদ্ধারে আসেন ইতালিয়ান রিকার্ডো ক্যালাফিওরি।

55 মিনিটে, উইলিয়ামস বাঁ দিক থেকে সরাসরি গোলের সামনে দিয়ে পেনাল্টি এলাকায় প্রবেশ করেন। ধরা যাক যে স্প্যানিশ পৌঁছেনি। কিন্তু আক্রমণ ঠেকিয়ে ভুল করেন রিকার্ডো। বলটি পায়ে লেগে নিজের গোলেই আটকে যায়।

শেষ পর্যন্ত, এই গোলটি খেলার ফলাফল নির্ধারণ করে। এই বছরের ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপে, সবচেয়ে বেশি আত্মহত্যার ঘটনা রেকর্ড করা হয়েছে গ্রুপ পর্বে। ভালো অ্যাসিস্ট করায় ম্যান অব দ্য ম্যাচ নির্বাচিত হন উইলিয়ামস।

ইতালির বিপক্ষে স্পেন ২৯টি শট করেছে। এতে বোঝা যায় ইতালির রক্ষণভাগে কতটা চাপ ছিল। বিপরীতে ইতালির আছে মাত্র ৫টি শট। স্প্যানিশদের পায়ে বল ছিল ৫৮ শতাংশ সময়। স্পেন এখানেও নিয়ম করে।

স্পেন হল প্রথম দল যারা B গ্রুপ থেকে 16-এর রাউন্ডে উঠেছে। দুই ম্যাচে আপনার সর্বোচ্চ স্কোর হল ছয়। সমান খেলায় ৩ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে ইতালি। 1 পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় বা চতুর্থ স্থানে রয়েছে আল বেনিয়া ক্রোয়েশিয়া।