April 24, 2024 11:32 am

আমরা পুরোপুরি ব্যর্থ হয়েছি, কেউ ভালো করতে পারিনি!

Advertisement
Advertisement

‘আমরা পুরোপুরি ব্যর্থ হয়েছি, কেউ ভালো করতে পারিনি!বোলিংয়ের পাশাপাশি ফিল্ডিংয়েও একের পর পর ভুল করেছে বাংলাদেশ। ব্যর্থতার চিত্রটা দেখা গেল স্বা’গতিকদের ব্যাটিংয়েও। চট্টগ্রামের চিরায়ত ব্যাটিং-বান্ধব উ’ইকেটে শ্রী’লঙ্কা যেখানে করল প্রথম ইনিংসে ৫৩১, সেখানে স্বাগতিকেরা অলআউট ১৭৮ রানে! সি’রিজের প্রথম টে’স্টেরই যেন পুনরাবৃত্তি চট্টগ্রামে। সিলেটে লঙ্কা’ন পে’সারদের সা’মনে নাজমুল হোসেন শান্তরা দাঁ’ড়াতেই পারেননি। তার জন্য হালকা ঘাসের উ’ইকেটকে না হয় দো’ষ দেওয়া যায়।

কিন্তু চট্টগ্রামে! ব্যর্থতার এই দায়টা কাকে দেবেন? দায়টা অবশ্য পুরো দলের ঘাড়েই দিলেন জাকির হাসান, ‘আসলে কারণটা আর কী বলব, আমরা পুরোপুরি ব্যর্থ হয়েছি। কেউ সম্ভাবনা অনুযায়ী পারফর্ম করতে পারি নাই।’ নাইটওয়াচম্যান তাইজুল ইসলামকে নিয়ে গতকাল তৃতীয় দিন শুরু করেছিলেন জাকির। তাঁর ৫৪ রানের ইনিংসটি যা একটু উল্লেখ করার মতন, সঙ্গে মুমিনুল হকের ৩৩ রানের লড়াই। বাকিরা এলেন আর গেলেন।

দুঃসময়ে ঢাল হতে পারেননি সাকিব আল হাসানও। এমন ব্যর্থতার পেছনে কি তবে পরিকল্পনার অভাব ছিল? এ নিয়ে জাকিরের উত্তর, ‘আমাদের যে কাজটা করার সেটা করতে পারিনি। আসলে ওই পরিকল্পনা থাকে মনে…মানে প্রথম পরিকল্পনাটা যদি কাজে লাগাতে পারি তখন ওই পরিকল্পনাটা করা উচিত।’ টানা দুই টে’স্টে ব্যা’টিং ব্যর্থতা। ঘা’টতিটা কো’থায় সেটি যেন এখ’নো খুঁজে পাচ্ছে না বাংলাদেশ।

৪ রান বাঁচাতে দৌড়ালেন ৫ জন, কারণ জানালেন জাকির!
গতকাল তৃতীয় দিনের খেলা শেষে সংবাদ সম্মেলনে এসে জাকিরও এ নিয়ে প্রশ্নের বলটা ঠেলে দিলেন কোচদের দিকে, ‘আসলে সবার যে জিনিসটা সেটা আমি বলতে পারব না। কোচ বা যারা আছেন তারা বলতে পারবেন। আমার ক্ষেত্রে যেটা মনে হয় যে, শট নির্বাচনে একটু সতর্ক হলে ভালো।’

Advertisement
x