1. Mijankhan298@gmail.com : Mijankhan :
  2. msthoney406@gmail.com : ২৪ ঘন্টা খবর : ২৪ ঘন্টা খবর
আর্শদীপকে নিয়ে ট্রল, উইকিপিডিয়াকে ভারত সরকারের তলব - ২৪ ঘন্টা খেলার খবর!
সর্বশেষ:
বাংলাদেশের ১ম ক্র্রিকেটার হিসেবে টি-২০ র‌্যাঙ্কিনে বড় চমক দেখালেন আফিফ ছেলেরা না পারলেও, মেয়েদের দুর্দান্ত জয়ে যা বললেন নাজমুল হাসান পাপন হতভম্ব ফুটবল বিশ্ব, ইন্দোনেশিয়ায় ফুটবল মাঠে সংঘর্ষ, নিহত ১২৯ চিলিতে ভেঙে পড়ল ফুটবল স্টেডিয়াম, আহত ৪ থাইল্যান্ডের বিপক্ষে যে পরিকল্পনা নিয়ে মাঠে নেমেছিল বাংলাদেশ সাকিব-মুশফিককে রেখেই ভারতে খেলতে যাচ্ছেন তামিম, দেখেনিন সময়সূচি অবশেষে নিজের ব্যর্থতার কথা নিজের মুখেই স্বীকার করলেন পাপন আমাদের সামর্থ্য আছে, নিশ্চিত করেই বলতে পারি এবার ভালো কিছু হবে: তাসকিন এশিয়া কাপের প্রথম দিনেই আম্পায়ারিং বিতর্ক! সবাইকে হতভম্ভ করে বাংলাদেশ এ’ দলের হয়ে ভারত সফরে যাবেন তামিম ইকবাল,দেখেনিন প্রতিটি ম্যাচের সময়সূচি

আর্শদীপকে নিয়ে ট্রল, উইকিপিডিয়াকে ভারত সরকারের তলব

  • আপডেট করা হয়েছে: সোমবার, ৫ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ৭২ বার পঠিত:

এশিয়া কাপের সুপার ফোরে পাক-ভারত লড়াইয়ে খলনায়ক হয়েছেন ভারতের আর্শদীপ সিং। ম্যাচের গুরুত্বপূর্ণ সময়ে ছেড়েছেন সহজ ক্যাচ। যার কারনে বিভিন্নভাবে হচ্ছেন ট্রলের শিকার। এদিকে তার উইকিপিডিয়া পেজেও

‘হামলা’ চালানো হয়েছে, তাকে যুক্ত করা হয়েছে বিচ্ছিন্নতাবাদী খালিস্তানি আন্দোলনের সঙ্গে। আর্শদীপের সঙ্গে ঘটে যাওয়া এমন বিষয়কে হালকাভাবে নেয়নি ভারত। ভারতের ইলেক্ট্রনিক্স এবং তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে আমলে নিয়েছে এবং উইকিপিডিয়া প্রতিনিধিদের

তলব করেছে। জানতে চাওয়া হয়েছে কিভাবে এত দ্রুত কিছু পরিবর্তন সম্ভব। আর্শদীপের পেজে একজন অনিবন্ধিত ব্যবহারকারী এডিট করে ‘ভারত’-এর

জায়গায় ‘খালিস্তান’ শব্দ বসিয়ে দেন। সেখানে দাবি করা হয়, খালিস্তানের হয়ে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে খেলেছেন এই পেসার। এমনকি লেখা হয়েছে, খালিস্তান জাতীয়

দলের হয়ে অভিষেক হয়েছে এই বছর এবং জায়গা পেয়েছেন খালিস্তানের এশিয়া কাপ দলে। অবশ্য ১৫ মিনিট পরই ভুয়া তথ্যগুলো মুছে ঠিক করা হয়। তবে ততক্ষণে অনেকের কাছেই এই তথ্যগুলো পৌঁছে যায় সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে। ভারতীয় সূত্র বলছে, জিজ্ঞাসাবাদ

করা হবে উইকিপিডিয়ার প্রতিনিধিদের। নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক সরকারি কর্মকর্তা জানিয়েছেন, ‘এটা গুরুতর ইস্যু। প্রতিবেশী দেশগুলোর সার্ভারে এই এডিটগুলো হয়েছে

বলে প্রাথমিকভাবে জানা গিয়েছে। দেশের অভ্যন্তরীণ শান্তি ও জাতীয় নিরাপত্তা বিঘ্নিত করতে পারে এই ঘটনা। উইকিপিডিয়া প্রতিনিধিদের কাছে জানতে চাওয়া হবে, এত অল্প সময়ের জন্য কীভাবে

তথ্য বদল করার অনুমতি দেওয়া হয়?’ বিশ্বের যে কোনও প্রান্ত থেকে যে কেউ উইকিপিডিয়ার তথ্য এডিট করতে পারে। তাই এই ওয়েবসাইটের তথ্য কতটা সত্যি তা নিয়ে আগেও একাধিকবার প্রশ্ন উঠেছে।

খবরটি শেয়ার করুন

এই বিভাগের আরো খবর
© All rights reserved © 2022 24hourskhobor.com
Site Customized By NewsTech.Com